২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: বিপ্র দাস বিশু বিত্রম

আমার সম্পর্কে : নির্বাহী সম্পাদক
প্রচ্ছদ বিভাগ বাংলাদেশ

নেপাল ট্রাজেডি সিলেট থেকে যাওয়া ১৩ জনের ২ জন বেঁচে আছেন

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত হওয়া বাংলাদেশী ইউএস বাংলা বিমানে সিলেটের একটি বেসরকারী মেডিকেলের ১৩ জন যাত্রী ছিলেন। তারা সবাই নেপালি নাগরিক। ঘটনার প্রথম দিকে তাদের সকলেরই মৃত্যু হয়েছে এমন সংবাদ বিভিন্ন অসমর্থিত সূত্রের মাধ্যমে পাওয়া যাচ্ছিল।
এখন আবার নতুন করে জানাগেছে রাগিব রাবেয়া মেডিকেলের ১৩ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২ জন বেঁচে আছেন। তারা কাঠমান্ডুর একটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
সোমবার দুপুরে এই উড়োজাহাজটি বিধ্বস্তের পর উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে রাতে জীবিত ১৯ যাত্রীকে শনাক্তের কথা জানিয়েছে ইউএস বাংলা বিমান কর্তৃপক্ষ। এ তালিকায় সিলেটের রাগিব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রিন্সি ধামি, সামিরা বায়জানকার নামের দুই শিক্ষার্থী রয়েছেন।
জালালাবাদ মেডিকেল কলেজের উপ-পরিচালক ডা. আরমান আহমদ শিপলু, সিলেটে থাকা দুর্ঘটনা কবলিত শিক্ষার্থীদের সহপাঠি ও নেপালে থাকা তাদের স্বজনদের বরাত দিয়ে এ তথ্যটি জানিয়েছেন। শিপলু বলেছেন- ‘প্রথম দিকে ১৩ শিক্ষার্থীর প্রাণহানির শঙ্কা করা হলেও জানা যাচ্ছে আমাদের কলেজের ২ জন শিক্ষার্থী বেঁচে আছেন। তাদেরকে নেপালের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।’
দুর্ঘটনা কবলিত বিমানে জালালাবাদ রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ১৩ শিক্ষার্থী থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আবেদ হোসেন। তিনি বলেন তন্মধ্যে ১১ জন মেয়ে শিক্ষার্থী ও ২ জন ছেলে শিক্ষার্থী রয়েছে। তারা সবাই ১৯ তম ব্যাচের ফাইনাল ইয়ারের শিক্ষার্থী। কিছুদিনের মধ্যে তারা এমবিবিএস সনদ প্রাপ্তির কথা ছিল। ফাইনাল পরীক্ষা শেষ করেই তারা নিজেদের দেশে আত্মীয়-স্বজনদের সাথে ছুটি কাটাতে রওয়ানা দিয়েছিল।
আবেদ হোসেন জানান, নিহতরা সবাই ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা শেষ করে নিজেদের দেশ নেপালে ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন। নেপাল পৌছার পরই এ দুর্ঘটনার স্বীকার হলেন তারা।
ঢাকায় ইউএস-বাংলার কার্যালয়ে সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইমরান আসিফ ১৯ জনের নাম সাংবাদিকদের জানালে আহতদের অবস্থা কী, সে সম্পর্কে তার কাছে জানতে চাওয়া হয়। তিনি তখন বলেন, “যেহেতু অ্যাক্সিডেন্টটা বার্নের, এজন্য অনেকে কী অবস্থায় আছেন, সেটা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।”
কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে রয়েছেন আহতরা।
ইমরান আসিফ বলেন, “আহতদের চিকিৎসা ও নিহতদের দেশে ফিরিয়ে আনবে ইউএস বাংলা। আগামীকাল ইউএস বাংলা, সিভিল এভিয়েশন ও সংশ্লিষ্টরা নেপাল যাবেন |

Leave a comment