৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: মোঃ মাহফুজ আহমদ

আমার সম্পর্কে : প্রতিনিধি
প্রচ্ছদ বিভাগ শিক্ষা

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা এ বছরও হচ্ছে না

গত দুই বছরের মতো চলতি বছরও অষ্টম শ্রেণির জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট বা জেএসসি এবং মাদ্রাসার জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট বা জেডিসি পরীক্ষা হচ্ছে না। এ পরীক্ষা না হলেও গত দুই বছরের মতো ক্লাস মূল্যায়নের মাধ্যমে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সনদ দেয়া হবে।

রোববার ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘বোর্ডগুলো এখন এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার নিতে ব্যস্ত সময় পার করছে। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে এ বছর জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে না।’

করোনাভাইরাসের কারণে গত দুই বছরও হয়নি জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা। উভয় শ্রেণির শিক্ষার্থীদের দেয়া হয় অটোপাস।
জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা হয়ে থাকে বছরের নভেম্বর মাসে। করোনার কারণে গত বছর এ পরীক্ষা হয়নি। নিজ নিজ মূল্যায়ন পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করে নবম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করে স্কুল ও মাদ্রাসাগুলো।

এ দিকে রোববার বিকেলে শিক্ষা বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ (ইরাব) এর নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে একই ইঙ্গিত দেন ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার।

তিনি বলেন, ‘১৯ জুন থেকে এসএসসি ও সমমান এবং ২২ আগস্ট থেকে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এসব লিখিত পরীক্ষা ও ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ করতে অক্টোবরের শেষ পর্যন্ত চলে যাবে। এরপর নভেম্বরে এসে ৩০ লাখ শিক্ষার্থীর জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা নেয়া তো অনেক কষ্টকর হবে।’

তপন কুমার আরও বলেন, ‘নতুন কারিকুলামে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার কোনো অস্তিত্ব থাকবে না। এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা শেষ করে এ দুই পরীক্ষার আয়োজন করতে গেলে শিক্ষা বোর্ডগুলোর জন্য তা হবে অত্যন্ত কষ্টকর। তাই চলতি বছরেও জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা না নেওয়ার সুপারিশ করেছে শিক্ষাবোর্ডগুলো।’

তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠকে পরীক্ষা নিয়ে আমরা আমাদের এ মতামত জানিয়েছি। তবুও যদি সরকার জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত দেয়, সে ক্ষেত্রে পরীক্ষা আয়োজনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।’
সৌজন্য সাক্ষাতে ইরাব-এর সাধারণ সম্পাদক আকতারুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক মুরাদ হুসাইন ও কার্যনির্বাহী সদস্য আবদুল হাই তুহিন উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment