২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: shuddhobarta24@

আমার সম্পর্কে : This author may not interusted to share anything with others
প্রচ্ছদ বিভাগ সিলেট

জগন্নাথপুরে জুয়া খেলা ও মাদকের ছড়াছড়ি : পুলিশ নির্বিকার

জগন্নাথপুর প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে ইয়াবা, গাঁজা ও চোলাই মদ, জোয়া খেলা সহ অসামাজিক কার্যকলাপ ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে স্কুল – কলেজগামী শিক্ষার্থী সহ উঠতি বয়সী যুব সমাজ দিন দিন ধ্বংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে।
জানা যায়, ২০২০ ও ২০২১ সালের শুরুর দিকে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন ও র‌্যাব এর সাড়াশি অভিযানে জগন্নাথপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার কিছু চিহ্নিত মাদক ব্যবসয়ী ও মাদকাসক্ত এবং জোয়াড়ীরা গ্রেপ্তার হয়ে জেলে গেলে পরিস্থতি কিছুটা শান্ত হয়। পাশা-পাশি অনেকেই গ্রেফতার এড়াতে এ সময় গাঁঢাকা দেয়। কিছুদিন যেতে না যেতেই অত্র উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ও গ্রাম এলাকায় আবারো জেল ফেরত মাদক ব্যবসায়ী ও মাদকাসক্ত এবং জুয়াড়ীদের উপদ্রব ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, উপজেলা সদরের জগন্নাথপুর বাজার, সিএ মার্কেট, বাড়ী জগন্নাথপুর, হাসিমাবাদ, গাংপাড়, স্যুইচগেট এলাকা সহ কলকলিয়া বাজার, রানীগঞ্জ বাজার, পাইলগাও বাজার, রসুলগঞ্জ বাজার ও চিলাউড়া বাজার সহ তৎপাশ্ববর্তী এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীরা ফেরী করে ইয়াবা,গাঁজা ও চোলাই মদ সহ ভারতীয় অফিসার, ডাইজিন, রয়েল ও ফেনসিডিল নামক মাদকদ্রব্য বিক্রি করছে। ফলে স্কুল -কলেজগামী শিক্ষার্থী সহ উঠতি বয়সী যুবকরা নেশার কবলে পরে বিপদগামী হচ্ছে। তাছাড়া এ সকল মাদকদ্রব্য সেবন এর কারনে মরনব্যাধী ক্যান্সার ও শ্বাসকষ্ট সহ বিভিন্ন প্রকার প্রাণঘাতী রোগে আক্রান্ত হওয়ার পাশা-পাশি মানসিক ভাবে বিকারগস্ত হচ্ছে যুব সমাজ। এমনকি নেশার টাকা যোগানোর তাগিদে চুরি -ছিনতাই ও সন্ত্রাসী সহ নানাবিধ অসামাজিক কার্যকলাপে ধাবিত হচ্ছে তারা। মানব চাহিদা নামক একটি পত্রিকার প্রতিবেদনে দেখা যায়, এ উপজেলার প্রায় ৬০℅ যুব সমাজ নানা ভাবে মাদকাসক্ত।
এছাড়াও অত্রাঞ্চলে তাশ, গাফলা, ক্যারামবোর্ড ও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রকাশ্যে জগন্নাথপুর বাজারের দোকানপাটে ও থানার আশপাশ সহ রাস্তার পাশের বিভিন্ন দোকানে এসব জুয়া খেলার প্রবনতা ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সর্বশান্ত হচ্ছে যুবসমাজ। বিশেষকরে প্রায় পোলট্রি ফার্ম ও মাছের ফিসারী রক্ষণাবেক্ষণ এর জন্য নির্মিত বাসায় (ঘর) প্রতিনিয়ত জুয়া খেলা হচ্ছে। এছাড়া জগন্নাথপুর বাজার, থানা এলাকা সহ স্লুইসগেট এলাকায় ভাসমান পতিতা বৃদ্ধি পাওয়ায় সচেতন মহলের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।
তবে এ নিয়ে কার্যকর কোন ভুমিকা নিচ্ছে না জগন্নাথপুর থানা পুলিশ।
মাদকাসক্ত, জুয়াড়ী ও পতিতাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য প্রশাসনের উদ্বর্তন কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছেন উপজেলার সচেতন নাগরিকবৃন্দ ।
এ ব্যাপারে মুঠোফোনে জানতে চাওয়া হলে জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন এ বিষয়ে আমাকে কেউ বলেনি। কোথায় এসব হচ্ছে বলেন ব্যবস্থা নেব।

Leave a comment