২৪শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: আশফাকুর রহমান

আমার সম্পর্কে : বার্তা বিভাগ প্রধান
প্রচ্ছদ বিভাগ রাজনীতি

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে বাংলাদেশীদের পাখির মত গুলি করে মারছে ভারত: দাবি বিএনপির

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে ২০২০ সালের ১১ মাসে প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৪১ জন বাংলাদেশী বেসামরিক নাগরিক। ‘সরকারের কার্যকর পদক্ষেপের অভাবে’ সীমান্তে এমন হত্যাকাণ্ড ঘটছে বলে মত বিএনপির।

সীমান্তে বাংলাদেশীদের হত্যার প্রতিবাদে সোমবার কেন্দ্রীয়সহ মহানগর ও জেলা কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন কর্মসূচি পালন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল । সীমান্তে হত্যাকান্ডের জন্য বরাবরই “সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতিকে” দায়ী করে আসছে দলটি। এ প্রতিবাদ কর্মসূচিও ছিল পূর্বনির্ধারিত।

তবে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ-ভারত ভার্চুয়াল সামিটের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, এ ধরনের সামিট হলে জনগণের প্রত্যাশা থাকে যে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কার্যকর আলোচনা হবে। ভারতের প্রতি সরকারের নমনীয় মনোভাবের কারণে সীমান্ত হত্যা ঘটছে বলে দাবি করেন বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী । মি. আলমগীর বলেন, শুধু এ সামিটে নয়, গত দশ বছরে সীমান্ত হত্যা উদ্বেগজনক হারে বাড়লেও বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে কোনো ধরনের কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগ করতেই এ কর্মসূচি বলে জানান তিনি। শুধুমাত্র রাজনৈতিক দল নয়, ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে বেসামরিক নাগরিকদের গুলি করে হত্যার বিষয়ে দীর্ঘদিন ধরে উদ্বেগ জানিয়ে আসছে মানবাধিকার সংগঠনসহ নানা মহল। বাংলাদেশের নাগরিকদের মধ্যেও এ নিয়ে রয়েছে ক্ষোভ।

Leave a comment