২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৭ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: mahfuz ahmed

আমার সম্পর্কে : প্রতিনিধি
প্রচ্ছদ বিভাগ খেলাধুলা

হেরেছে বাংলাদেশ, জিতেছেন সাকিব

লক্ষ্য বেশ বড়ই, ৩৮৭ রান। এই পাহাড়সম লক্ষ্য টপকে জেতা অসম্ভবই। বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ঠিক তাই হয়েছে। স্বাগতিক ইংল্যান্ডের রানের পাহাড়ে চাপা পড়েছে বাংলাদেশ। হেরেছে ১০৬ রানের বিশাল ব্যবধানে।আজ শনিবার কার্ডিফে বাংলাদেশ হেরেছে ঠিক, তবে জিতেছেন সাকিব আল হাসান। ইংল্যান্ডের দুর্দান্ত বোলিং আক্রমণের সামনে ১১৯ বলে খেলেছেন  ১২১ রানের চমৎকার ইনিংস। তাঁর এই ইনিংসের ওপর ভর করে বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত ২৮০ রান করে।  

এর আগে মাশরাফি-মিরাজদের বোলিং তছনছ করে ছয় উইকেটে ৩৮৬ রান করে ইংল্যান্ড। জবাবে মাঠে নেমেই সৌম্য কে হারায় বাংলাদেশ। এরই কিছুক্ষণ পরে বিদায় নেন তামিমও।তবে সাকিব-মুশফিক জুটি নিজেদের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন। সাকিব আল হাসান চলতি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম শতক করলেন। ৯৫ বলে শতক পূর্ণ করেন তিনি। মুশফিককে নিয়ে দলের রানরেট এগিয়ে নেন তিনি। ৯৮ বলে ১০০ রানের পার্টনারশিপ গড়েন তাঁরা। ১১৯ বলে ১২১ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলেন সাকিব। স্টোকসের বলে বোল্ড হন তিনি।

৫০ বলে ৪৪ রান করে আউট হন মুশফিক। তাঁর চলে যাওয়ার পর কোনো রান না করেই আউট হয়ে যান মিঠুন। মাহমুদুল্লাহ এসে যোগ দেন সাকিবের সঙ্গে। সাকিব আউট হয়ে গেলে যোগ দেন মোসাদ্দেক।১৭ ওভার শেষে দুই উইকেটে ৮৭ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। দুই ওপেনার বিদায় নিয়েছেন। সাকিবের সঙ্গে দলের হাল ধরেন অভিজ্ঞ মুশফিক। তৃতীয় ম্যাচেও অর্ধশতক করলেন সাকিব। ৫৩ বলে অর্ধশতক করেন তিনি।এর আগে ফিল্ডিংয়ের সময় সবচেয়ে বাজে প্রদর্শন করে মাশরাফির দল।

মুস্তাফিজের বলে পুল করলেন জেসন রয়। ফিল্ডারকে ফাঁকি দিয়ে বল সীমানা পার করল। এভাবেই রয় শতক পূর্ণ করলেন। এটাই ছিল বাংলাদেশের ফিল্ডিংয়ের চিত্র। বাজে ফিল্ডিং, ওভার থ্রোর সঙ্গে যোগ হলো বোলারদের ব্যর্থতা। যোগফল হলো ছয় উইকেটে ৩৮৬ রান। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ৩৮৭ রান।

বিশ্বকাপে এটিই এখন পর্যন্ত কোনো দলের সর্বোচ্চ রান। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত এটি ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান।ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা সমানে ব্যাট চালিয়েছেন আর মিস ফিল্ডিংয়ের মহড়া দিলেন বাংলাদেশের ফিল্ডাররা। প্রথম দুই ঘণ্টায় বাংলাদেশের একটাই প্রাপ্তি; বেয়ারস্টোর উইকেট। মাশরাফির বলে দুর্দান্ত ক্যাচ ধরেছেন মিরাজ। বেয়ারস্টো ৫১ রানে আউট হন।

৯২ বলে শতক পূর্ণ করেছেন জেসন রয়। বেয়ারস্টোর পর মাঠে যান জো রুট। একাধিকবার মিস ফিল্ডিং হয়েছে, ওভার থ্রো হয়েছে। যার পুরো সুযোগ নিয়েছেন ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। ১২১ বলে ১৫৩ রান করে মিরাজের বলে আউট হন জেসন রয়। তবে তাতে রানের গতি থামেনি। রুদ্রমূর্তি নিয়ে হাজির হন বাটলার। ৪৪ বলে ৬৪ রান করেন তিনি। যার মধ্যে ছিল দুটি চার ও ছয়টি ছক্কার মার। সাইফুদ্দিনের বলে আউট হন তিনি। পরে অধিনায়ক মরগান ৩৫ করে আউট হন।

স্টোকসকে মাত্র ছয় রানেই ফিরিয়ে দেয় বাংলাদেশ। তবে তাতে কি প্লানকেট এসে স্টোকসের অভাব পূরণ করে দেন। নয় বলে ২৭ রান করেন তিনি।বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন সাইফুদ্দিন ও মিরাজ। একটি করে উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি ও মুস্তাফিজ। সাকিব ১০ ওভারে৭১ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। মাশরাফি ১০ ওভারে দিয়েছেন ৬৮ রান।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে স্পিনেই আস্থা রাখেন অধিনায়ক মাশরাফি। যার কারণে রুবেলকে এই ম্যাচে দেখা যায়নি। টস জিতে সাকিবের হাতেই বল তুলে দেন তিনি। তবে ওপেনার জনি বেয়ারস্টো ও জেসন রয় নিজেদের মতো করেই শুরু করেন ইনিংস। প্রথম ১০ ওভারে বিনা উইকেটে ৬৭ রান তুলে নেয় ইংলিশরা।সাকিবের সঙ্গে বোলিং ওপেন করেন মাশরাফি। তিন ওভার পরে নিজেকে বদলে সাইফুদ্দিনের হাতে বল দেন তিনি।

কার্ডিফে চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচ খেলছে ইংল্যান্ড-বাংলাদেশ।নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে রীতিমতো উড়িয়ে দেয় ইংল্যান্ড। তবে দ্বিতীয় ম্যাচেই পাকিস্তানের কাছে হেরে যায় তারা। অন্যদিকে বাংলাদেশ দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে শুভ সূচনা করে। তবে পরের ম্যাচেই অল্পের জন্য হেরে যায় নিউজিল্যান্ডের কাছে।আগের দুই ম্যাচের অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে মঈন আলীর পরিবর্তে লিয়া, প্লানকেটকে দলে নিয়েছে ইংল্যান্ড।

Leave a comment