৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: বিপ্র দাস বিশু বিত্রম

আমার সম্পর্কে : নির্বাহী সম্পাদক
প্রচ্ছদ বিভাগ আন্তর্জাতিক

নিউইয়র্কে পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস

হাকিকুল ইসলাম খোকন, নিউইয়র্ক: ১৫ই আগস্ট নিউইয়র্ক জ্যাকসন হাইস্টস এর ডাইভারসিটি প্লাজায় যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সম্মিলিত জোটের আয়োজনে সর্বজনীনভাবে গভীর শোক, শ্রদ্ধায় ও যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হলো জাতীয় শোক ও স্বরণ দিবস। বাঙ্গালী কমিউনিটির বিভিন্ন স্তর ও সংগঠন সমুহের নেএীবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর জীবন ও দর্শন নিয়ে আলোচনা করেন। অনুষ্ঠানে চিএ প্রদর্শনী, বঙ্গবন্ধুর উপর বীর মুক্তিযোদ্ধা রথীন্দ্রনাথ রায় ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ হাসানের বঙ্গবন্ধুর উপর গান পরিবেশন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পূস্পার্ঘ অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন ও মোমবাতি প্রজ্বলন করে শহীদের স্বরণ করা হয়। পুরো অনুষ্ঠানের সঞ্জালক ছিলেন যথাক্রমে-কায়কোবাদ খান ও ইঞ্জিঃ মিজানুল হাসান এবং সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা ডঃ প্রদীপ রঞ্জন কর। বক্তব্য রাখেন- যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা  হাকিকুল ইসলাম খোকন, তোফায়েল চৌধূরী,  যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সনপাদক আবদুর রহিম বাদশা, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের জনসংযোগ সনপাদক কাজী কয়েস, নিউইয়র্ক প্রদেশ আওয়ামী লীগের সাধারন সনপাদক শাহিন আজমল, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সদস্য কামরুল আলম হিরা, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সদস্য ইলিয়ার রহমান, আওয়ামী লীগের সদস্য আশরাফ মাসুক, আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম রাব্বানী, ইকবাল হোসেন ও ওয়ালী হোসাইন, শেখ হাসিনা মঞ্জের সভাপতি জালালউদ্দিন জলিল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি ডিএম রনেল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সনপাদক সুবল দেবনাথ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন যুগ্ম সনপাদক নাফিকুর রহমান তুরান, সাবেক যুক্তরাষ্ট্র ছাএলীগ সভাপতি জেড এ জয়, যুক্তরাষ্ট্র ছাএলীগের সাবেক সাধারন যুগ্ম সনপাদক জাহাঙ্গীর এইচ মিয়া, যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ সাধারন সনপাদক রেফায়েতউল্লা চৌধূরী,পেশাজীবি সমনয় পরিষদ সভাপতি আশরাফুল হক, আওয়ামী আইনজীবি পরিষদ সভাপতি মোশেদা জামান, গোপালগঞ্জ সমিতি নেতা খসরুল আলম, এম.জি মুস্তফা, হেলাল মিয়া, স্বপন বিশ্বাস সহ প্রমুখ ।

বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন-১৫ আগস্ট জাতীয় শোক ও বেদনার দিন। এই দিনেই ঘাতকেরা হত্যা করেছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। তারা হত্যা করে শিশু-নারীসহ তাঁর পরিবারের অধিকাংশ সদস্যকে। ইতিহাসে এ রকম নৃশংসতার নজির নেই। এই দিনে বাংলাদেশ হারিয়েছে তার স্থপতিকে, বাংলাদেশিরা হারিয়েছেন তাদের জাতির পিতাকে, বাঙালি হারিয়েছে ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ বাঙালিকে। ঘাতকচক্র জাতির পিতাকে হত্যা করলেও তার নীতি ও আদর্শকে মুছে ফেলতে পারেনি। যতদিন বাংলাদেশ ও বাঙালি থাকবে, ততদিন জাতির পিতার নাম এ দেশের লাখো-কোটি বাঙালির অন্তরে চির অম্মান হয়ে থাকবে। জাতির পিতা হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করে তাঁর ত্যাগ ও তিতিক্ষার দীর্ঘ সংগ্রামী জীবনাদর্শ ধারণ করে ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, শান্তিপূর্ণ, সমৃদ্ধ, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে আত্মনিয়োগ করার আহবান জানান বক্তারা। তারা আরো বলেন-এবারের শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার পলাতক আসামীদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে নিয়ে ফাঁসির রায় কার্যকর করার অঙ্গীকার করা হয়।

 

Leave a comment