৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: আশফাকুর রহমান

আমার সম্পর্কে : বার্তা বিভাগ প্রধান
প্রচ্ছদ বিভাগ বিনোদন

স্কুলে পড়ার সময় র‍্যাগিংয়ের শিকার হয়েছিলাম : সাবিলা

ডেস্ক নিউজ: সাবিলা নূর মডেল ও অভিনেত্রী, সাবলীল অভিনয় দিয়ে জয় করে নিয়েছেন অসংখ্য দর্শকের মন। সম্প্রতি তৌসিফের বিপরীতে একটি নাটকে অভিনয় করেছেন। নাটকের নাম ‘ডোন্ট টাচ’। ইমরাউল রাফাত পরিচালিত নাটকটি ইউটিউবে প্রকাশ হওয়ার পর থেকে ভালো সাড়া পাচ্ছেন সাবিলা। নাটক ও অন্য অনেক বিষয় নিয়ে আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন সাবিলা।

প্রতিবেদক : ‘ডোন্ট টাচ’ নাটকের চিত্রনাট্য পড়ার পর আপনার কী অনুভূতি হয়েছিল?

সাবিলা নূর : খুব বাস্তবধর্মী একটা গল্প মনে হয়েছিল। পরিচালক ইমরাউল রাফাত যে চিন্তা থেকে নাটকটি নির্মাণ করেছিলেন, এটাকে আমিও সমর্থন করি। ভালোবাসতে হলে স্পর্শ করতে হবে এমন কোনো কথা নেই তো। আমার কাছে ভালোবাসার মানে হলো, দুজন দুজনাকে শতভাগ বুঝতে পারা। বোঝাপড়া অনেক জোরালো হতে হবে। সম্পর্কে ভালো থাকতে পারাটাও জরুরি।

প্রতিবেদক : নাটকটিতে র‍্যাগিংয়ের একটা দৃশ্য ছিল। আপনি বাস্তবে কখনো র‍্যাগিংয়ের শিকার হয়েছিলেন?

সাবিলা নূর : হ্যাঁ, স্কুলে পড়ার সময় র‍্যাগিংয়ের শিকার হয়েছিলাম। আমি চোখে চশমা পরতাম। দেখতে শুকনা ছিলাম। অনেক পড়াশোনা করতাম। এ জন্য সিনিয়ররা আমাকে অনেক কিছু বলে র‍্যাগ দিতেন। আমি এসব বাসায় এসে কখনো কিছু বলতাম না। আব্বু ও আম্মুকে কোনোদিন কিছু বলিনি। সমস্যা নিজেই সামলে নেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম। আর এখন তো সাইবার ক্রাইমের শিকার হচ্ছি। মেসেঞ্জারে অনেক উল্টাপাল্টা বার্তা আসে।

প্রতিবেদক : এবার অন্য প্রসঙ্গে কথা বলি। রোমান্টিক নাটকে বেশি অভিনয় করছেন। যখন একটা নতুন নাটকের চিত্রনাট্য পড়েন, তখন শুটিংয়ের আগে প্রস্তুতি কীভাবে নেন?

সাবিলা নূর : আমি সব সময় অল্প করে হলেও প্রস্তুতি নেওয়ার চেষ্টা করি। শুটিংয়ের আগের রাতে ঘুমের কিছুটা ক্ষতি করে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে ৩০ মিনিটের মতো অভিনয় অনুশীলন করি। যে চরিত্রে পরের দিন অভিনয় করব, সেই চরিত্রে ডুবে যাওয়ার চেষ্টা করি।

প্রতিবেদক : আপনার পড়াশোনার কী খবর?

সাবিলা নূর : ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা করছি। পড়াশোনাকে আমি সব সময় গুরুত্ব দিয়ে থাকি। নিয়মিত ক্লাস করছি। এর ফাঁকে অভিনয় করছি। অভিনয় আমার ভালোলাগার জায়গা।

 

 

Leave a comment