১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: Md Mahfuz ahmed

আমার সম্পর্কে : প্রতিনিধি
প্রচ্ছদ বিভাগ সিলেট

সিলেট নগরীর ভোজনবাড়ি রেস্টুরেন্টে মুজিববর্ষকে সামনে রেখে ‘হাসিমপুর প্রগতি ফাউন্ডেশন’

সিলেট নগরীর ভোজনবাড়ি রেস্টুরেন্টে মুজিববর্ষকে সামনে রেখে ‘হাসিমপুর প্রগতি ফাউন্ডেশন’ নামে একটি অরাজনৈতিক, আত্মোন্নয়নমূলক, সামাজিক ও সেবামূলক সংগঠন গঠনের লক্ষে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার সরমঙ্গল ইউনিয়নের হাসিমপুর গ্রামের সিলেটে অবস্থানরত ব্যক্তিবর্গ এই সভায় উপস্থিত থেকে তাদের মতামত ব্যক্ত করেন। সবার মতামতের ভিত্তিতে মুরারিচাঁদ(এমসি) কলেজ, সিলেটের গণিত বিভাগের প্রভাষক জনাব দিলীপ রায়কে আহবায়ক এবং হযরত শাহজালাল(র.) উচ্চ বিদ্যালয়, মেজরটিলা, সিলেটের প্রধান শিক্ষক জনাব সুরঞ্জিত দাসকে সদস্য সচিব করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। ফাউন্ডেশনের লক্ষ্য হলো ২০৪১ সালের মধ্যে হাসিমপুর গ্রামকে দিরাই উপজেলা তথা সমগ্র বাংলাদেশের মধ্যে উন্নত ও আদর্শ গ্রাম হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা এবং নিরক্ষরমুক্ত করা।

উদ্দেশ্য সমূহ:

১. দলমত, বর্ণপ্রথা এসবের ঊর্ধ্বে ওঠে সবার সাথে সুসম্পর্ক বৃদ্ধির মাধ্যমে, সহমর্মিতা, হৃদ্ধিতা, পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ বৃদ্ধিকরণ এবং সবাইকে সামাজিকীকরণে উদ্বুদ্ধকরণ ২. গ্রামের মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন ৩. গ্রামের ছেলে মেয়েদের মধ্যে সুশিক্ষার আলো বিতরণ ৪. গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা অর্জনের ধারাবাহিকতা রক্ষায় এগিয়ে আসা এবং তাদের জন্য প্রয়োজনীয় বৃত্তির ব্যবস্থা করা। ৫. খেলাধূলার মাধ্যমে সম্প্রীতির বন্ধন সদৃঢ় করা, খেলোয়ার দল গঠন করা এবং একটি শক্তিশালী ও কর্মঠ যুবসমাজ তৈরি করা ৬. গ্রাম থেকে সমস্ত অন্যায় – অনাচারমূলক কাজ চিরতরে বন্ধ করা ৭. উচ্চশিক্ষার নিমিত্তে গ্রামের যে সকল শিক্ষার্থী শহরে আসতে চায় তাদের সহযোগিতা করা ৮. শিক্ষিত-অশিক্ষিত ক্ষেত্র মোতাবেক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা।

দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা:

১.গ্রামের মানুষকে স্বকর্মসংস্থানে উদ্বুদ্ধকরণে ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে কিছু জায়গা সিলেক্ট করে ঘর নির্মাণ করা ২. পাঠাগার স্থাপন করা ৩. পড়ালেখার মান উন্নয়নের জন্য দুর্বল শিক্ষার্থীদের জন্য কোচিং ক্লাসের ব্যবস্থা করা ৪. গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে মেডিকেল ক্যাম্পেইন করা ৫. প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে বেকার যুবক-যুবতীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা প্রশিক্ষণসমূহ: ক. মেয়ে ও মহিলাদের সেলাই প্রশিক্ষণ খ. হাসমুরগী পালন গ. মাছ চাষ ঘ. শাক-সবজি চাষ ঙ. ছাগল পালন চ. বিদেশী গাভী পালন ছ. কৃষকদের কৃষিকাজ সহজকরণে প্রশিক্ষণ প্রদান।

করণীয়:

১.গ্রামের ছেলে মেয়েদের সমন্বয়ে উন্নয়ন রূপকল্প-২০৪১ বাস্তবায়নে ভলান্টিয়ার গ্রুপ গঠন ২. অন্যায়-অনিয়ম প্রতিরোধকল্পে প্রেশার গ্রুপ তৈরি ৩. ফাউন্ডেশনের কাজকে সাবলীলভাবে পরিচালনার জন্য পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা প্রণয়ন ৪. পরিচালনা পর্ষদ গঠন ৫. ফাউন্ডেশনের জন্য ফান্ড কালেকশনের ব্যবস্থা গ্রহণ।

Leave a comment