১লা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: Md Mahfuz ahmed

আমার সম্পর্কে : প্রতিনিধি
প্রচ্ছদ বিভাগ বিনোদন

অশ্লীল ইঙ্গিত দেয়ায় ট্যাক্সিচালককে পুলিশে দিলেন অভিনেত্রী

রাস্তাঘাটে মেয়েদের নানারকম হয়রানির শিকার হতে হয়। এসব ঘটনা নতুন নয়। নানারকম উদ্যোগ ও সচেতনতার ব্যবস্থা করা হলেও ঘরের বাইরে মেয়েদের নির্যাতন কমছেই না। বরং বাড়ছে। সম্প্রতি কলকাতার অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর মতো প্রভাবশালী নারীও হয়রানির শিকার হলেন।

এক ট্যাক্সিচালক তাকে কটুক্তি করে বসে রাস্তায়। সাংসদ মিমিও দমে যাননি। সঙ্গে সঙ্গে সেই চালককে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন তিনি। ঘটনাটি বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

ঘটনার সূত্রপাত মিমি জিম থেকে বাড়ি ফেরার সময়। ওইদিন গভীর রাতে বালিগঞ্জ এবং গড়িয়াহাটের মাঝামাঝি এলাকায় ট্র্যাফিক সিগনালে যখন মিমির গাড়ি দাঁড়িয়েছিল। তখন একটি ট্যাক্সি তার গাড়িকে ওভারটেক করে। মিমি কাঁচ নামিয়েছিলেন। তখনই তিনি লক্ষ্য করেন, পাশে দাঁড়ানো ট্যাক্সিটির চালক তার দিকে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করছে।

মেজাজ হারিয়ে গাড়ি থেকে নামেন মিমি। ট্যাক্সিচালককেও টেনে নামান। ধমকে বলেন, তাকে পুলিশে দেওয়া হবে। ততক্ষণে রাস্তায় লোক জমে গিয়েছে।

এরপর মিমি যোগাযোগ করেন পুলিশের সঙ্গে। পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে ঘটনা জেনে অভিযুক্ত চালকের খোঁজ শুরু করে। রাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়। ঘটনাচক্রে, ওইদিন মিমির দেহরক্ষী তার সঙ্গে ছিলেন না।

এ ঘটনা নিয়ে ১৫ সেপ্টেম্বর মিমি পশ্চিমবঙ্গের গণমাধ্যমে বলেন, ‘সরকারি গাড়ি দেখেও যদি এক ট্যাক্সিচালক তার আরোহীকে উদ্দেশ্য করে প্রকাশ্যে এমন অশ্লীল ইঙ্গিত ও মন্তব্য করতে পারে, তা হলে সাধারণ মেয়েদের কী অবস্থা হতে পারে!’

পুলিশের বক্তব্য, মিমির কল পেয়ে ডিউটিরত সার্জেন্ট আধ ঘণ্টার মধ্যে ট্যাক্সি-সহ চালককে আটক করেন। ওই চালকের নাম দেবা যাদব। বয়স ৩২ বছর। তাকে গ্রেফতার করা হয় বাইপাসের ধারে আনন্দপুর থানা এলাকা থেকে। তার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানি, অশ্লীল ইঙ্গিত এবং কটূক্তির ধারায় গড়িয়াহাট থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

Leave a comment