২৩শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং , ৯ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: mahfuz ahmed

আমার সম্পর্কে : প্রতিনিধি
প্রচ্ছদ বিভাগ আন্তর্জাতিক

বোমা হামলায় পাকিস্তানে মসজিদে রক্তের বন্যা

অনলাইন ডেস্ক: পাকিস্তানের কোয়েটায় একটি মসজিদ নামাজ আদায় করতে যাওয়া মুসল্লিদের রক্তে সয়লাব হয়ে গেছে। শুক্রবার তারা স্যাটেলাইট টাউন এলাকায় ওই মসজিদে মাগরিবের নামাজ আদায় করতে গিয়েছিলেন । এ সময় বিকট শব্দে সেখানে বিস্ফোরণ হয়। সঙ্গে সঙ্গে লুটিয়ে পড়েন কমপক্ষে ১৫ জন। আহত হয়েছেন ১৯ জন মুসল্লি। ভয়াবহ এক অবস্থার সৃষ্টি হয় সেখানে। মুহূর্তে মসজিদের মেঝেতে যেন রক্তস্রোত বয়ে যেতে থাকে। আর্তনাদ আর বাঁচার আকুতিতে পরিবেশ ভারি হয়ে ওঠে।

বেলুচিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জিয়া ল্যাংগোভ হামলায় হতাহতের কথা নিশ্চিত করেছেন। এ হামলার নিন্দা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, বিরোধী দলীয় রাজনীতিকরা। এ খবর দিয়ে অনলাইন ডন লিখেছে, কোয়েটার ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল আবদুল রাজ্জাক সীমা এবং হাসপাতাল সূত্রমতে, নিহতদের মধ্যে রয়েছেন মসজিদটির ইমাম এবং পুলিশের একজন ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট আমানুল্লাহ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, এটা ছিল আত্মঘাতী হামলা।

বেলুচিস্তান সরকারের মুখপাত্র লিয়াকত শাহওয়ানিও নিশ্চিত করেছেন, এটা ছিল আত্মঘাতী হামলা। হতাহতদের তাৎক্ষণিকভাবে কোয়েটার সিভিল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শহরের সব হাসপাতালে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। বেলুচিস্তান পুলিশ প্রধান মোহসিন হাসান ভাটও হতাহতের কথা নিশ্চিত করেছেন। বলেছেন, হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১৯ জন। তার মধ্যে তিন থেকে চার জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ওদিকে বোমা নিষ্ক্রিয়করণ স্কোয়াড ও নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ওই মসজিদ ও এর আশপাশে তথ্যপ্রমাণের জন্য চিরুণি অভিযান শুরু করেছেন। পুরো এলাকা ঘিরে রেখেছেন তারা।

মসজিদটি পসতুন সংখ্যাগরিষ্ঠ এলাকায় অবস্থিত। মাগরিবের নামাজে উপস্থিত ছিলেন মুসল্লি ফিদা মোহাম্মদ। তিনি বলেছেন, মসজিদটি গাউসাবাদ এলাকায় অবস্থিত। হামলার সময় এর ভিতর ছিলেন প্রায় ৬০ জন মুসল্লি। নামাজ শুরু হওয়ার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে বিস্ফোরণ জামাতের প্রথম সারি বিদির্ণ করে বিস্ফোরিত হয়। তার কথায়, এটা ছিল শক্তিশালী এক বিস্ফোরণ।

এ সময় মানুষজন আর্তনাদ করছিলেন। এলোপাতাড়ি দৌড়াচ্ছিলেন। অনেকেই আহত হয়েছেন ধাক্কাধাক্কিতে। টেলিভিশনে পাওয়া ফুটেজে দেখা গেছে, মসজিদটির মেঝেতে ধ্বংস্তূপ। তাজা রক্ত। আর ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে ভাঙা কাচ। হামলার দায় তাৎক্ষণিকভাবে কেউ স্বীকার করে নি। প্রায় এক মাস আগে পুলিশ কর্মকর্তা আমানুল্লাহর ছেলে নাজিবুল্লাহকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এরপরই এ ঘটনা ঘটলো। ডিজিআই চিমা বলেছেন, নাজিবুল্লাহ হত্যার তদন্ত পুরোপুরি শেষ করে এনেছে পুলিশ। এখন তদন্ত করে দেখা হচ্ছে সেই একই গ্রুপ এই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে কিনা। ওদিকে ইন্টার সার্ভিসেস পাবলিক রিলেশন্সের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আসিফ গফুর টুইটে বলেছেন, বিস্ফোরণস্থলে পৌঁছেছে ফ্রন্টিয়ার কোরের কর্মকর্তারা।

তারা সেখানে পুলিশের সঙ্গে তল্লাশি অভিযান পরিচালনা করছে। পুলিশ এবং বেসামরিক প্রশাসনকে সম্ভাব্য সব রকম সহযোগিতা দেয়ার আশ্বাস দেন তিনি। সেনাপ্রধান জেনারেল কমর জাভেদ বাজওয়াকে উদ্ধৃত করে এতে আরো বলা হয়, একটি মসজিদের ভিতরে নিরাপরাধ মানুষদের যারা টার্গেট করে তারা কখনোই সত্যিকার মুসলিম হতে পারে না।

হামলার নিন্দা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি বলেছেন, সন্ত্রাসীদেরকে কখনোই সফল হতে দেয়া যাবে না। আহতদের তিনি সম্ভাব্য সব রকম চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। এ ঘটনার রিপোর্ট চেয়েছেন তিনি। বেলুচিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী জাম কামাল খান হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, যারা নামাজরত মানুষের ওপর হামলা চালিয়েছে তাদের কোনো ধর্ম নেই। উপজাতিদের সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই। তারা শুধুই সন্ত্রাসী। তাদের কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত।

রাজ্যের ভিতরকার শত্রুরা আবারও আইন শৃংখলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে চায়। কিন্তু কঠোর চেষ্টায় স্থাপিত শান্তি কাউকে বিনষ্ট করতে দেয়া হবে না। বেলুচিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ল্যাংগোভ হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সন্ত্রাসীরা পাকিস্তানের উন্নয়ন দেখে ভীত শঙ্কিত। দেশের ভিতরকার ও বাইরের শত্রুরা পীড়া ও অশান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করছে। তাই পরাজিত সন্ত্রাসীদেরকে কখনোই সফল হতে দেয়া যাবে না। এ সময় তিনি হতাহতদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেন। আহতদের চিকিৎসায় অবহেলা সহ্য করা হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

প্রাদেশিক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রি বলেছেন, সন্ত্রাসীরা ওই মসজিদটিকে সহজ টার্গেটে পরিণত করেছে। হামলার নিন্দা জানিয়েছেন পাকিস্তানের পার্লামেন্ট জাতীয় পরিষদের বিরোধী দলীয় নেতা শাহবাজ শরীফ। বিরোধী দল পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারিও হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। তিনিও হতাহতের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন। অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন।

Leave a comment