২৯শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: Kazi Adnan Hafiz

আমার সম্পর্কে : প্রতিনিধি
প্রচ্ছদ বিভাগ সিলেট

ছাতকে নৌকার সমর্থনে নির্বাচনী শো-ডাউন

ছাতক প্রতিনিধি: ছাতকে নৌকার পক্ষে উপজেলার পৃথক তিনটি স্থানে নির্বাচনী শো-ডাউন অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৌরসভাসহ ইসলামপুর, কালারুকা, নোয়ারাই, উত্তর খুরমা ও ছাতক সদর ইউনিয়ন নিয়ে ছাতক পৌর শহরে, জাউয়া, চরমহল্লা, সিংচাপইড়, ভাতগাঁও ও দক্ষিণ খুরমা নিয়ে জাউয়ায় এবং গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ও ছৈলা আফজলাবাদ ইউনিয়ন নিয়ে গোবিন্দগঞ্জে নৌকার পক্ষে বিশাল শো-ডাউন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রার্থী মুহিবুর রহমান মানিক এমপি ও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত শামীম আহমদ চৌধুরীর নেতৃত্বে জাউয়া বাজারে বিশাল নির্বাচনী শো-ডাউন অনুষ্ঠিত হয়। একই সাথে প্রধান অতিথি পৌর মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী, বিশেষ অতিথি সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াহিদ মজনু ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দ আহমদের নেতৃত্বে ছাতক শহরে এবং আওয়ামীলীগ নেতা আওলাদ আলী রেজা, ইউপি চেয়ারম্যান আখলাকুর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান গয়াছ আহমদের নেতৃত্বে গোবিন্দগঞ্জে ও দোলারবাজারে এবং লক্ষিবাউর বাজারে পৃথক নির্বাচনী শো-ডাউন অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে, ছাতক পৌর শহরে শেষ নির্বাচনী শো-ডাউনে অংশ নিতে বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন থেকে খন্ড-খন্ড মিছিল শহর প্রদক্ষিণ করে পাবলিক খেলার মাঠে এসে জড়ো হতে থাকে। এক পর্যায়ে নৌকার মিছিলে-মিছিলে গোটা শহর পরিনত হয় মিছিলের নগরীতে। মিছিলে-মিছিলে ছাতক পাবলিক খেলার মাঠ (মন্টু বাবুর মাঠ) পরিনত হয় জন সমুদ্রে। এসময় নৌকার মঞ্চে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক, পৌর মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ছাতক উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াহিদ মজনু, সৈয়দ আহমদ, অধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন আহমদ, প্যানেল মেয়র তাপস চৌধুরী। আওয়ামীলীগ নেতা কল্যানব্রত দাস, শাহীন চৌধুরী ও জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি বাবুল রায়ের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, পৌর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার অজয় ঘোষ, আওয়ামীলীগ নেতা শাহীন আহমদ চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান দেওয়ান পীর আব্দুল খালেক রাজা, আব্দুল হেকিম, আব্দুল অদুদ, বিল্লাল আহমদ, সাইফুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল মমিন চৌধুরী, আলহাজ্ব আব্দুল জলিল আজাদ, পৌরসভার প্যানেল মেয়র তাপস চৌধুরী, এড. পীযুষ ভট্টাচার্য্য, ব্যবসায়ী জয়নাল চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা আবু সাইদ চৌধুরী বাবুল, সাদিকুর রহমান, পৌর কাউন্সিলর আখলাকুল আম্বিয়া সোহাগ, দেলোয়ার হোসেন, লিয়াকত আলী, সুদীপ দে, ধন মিয়া, নওশাদ মিয়া, আছাব মিয়া, সাবেক কাউন্সিলর ইরাজ মিয়া, মাসুক মিয়া, আফরোজ মিয়া, সাবেক কমিশনার আফতাব মিয়া, ফারুক মিয়া তালুকদার, আওয়ামীলীগ নেতা সামছু মিয়া, বাবুল পাল, সাব্বির আহমদ, আফতাব উদ্দিন, নুর উদ্দিন, আব্দুল আওয়াল, এমদাদুল হক সাদক আলী, কামাল উদ্দিন, নরুল হক মেম্বার, মাফিজ আলী, ফজলে করিম লিলু, আজাদ মিয়া, হাজী নুরুল ইসলাম, কাজী আমিনুল হক, হাজী সামছুল ইসলাম, শ্রমিকলীগ নেতা আব্দুল কদ্দুছ, খলিলুর রহমান, মঈন উদ্দিন আহমদ, শাহ আলম, আব্দুস ছাত্তার, যুবলীগ নেতা দেলোয়ার মাহমুদ জুয়েল বক্স, লায়েক মিয়া, রুহেল চৌধুরী, পংকজ চৌধুরী, সম্রাট চৌধুরী, মিনহাজুর রহমান তাপস, দিলোয়ার হোসেন, আব্দুল মমিন, ফয়জুল ইসলাম ফজল, শাহ আরজ মিয়া, বক্তার আহমদ, কাজল মিয়া, খোকন মিয়া, বিশ্বজিত ঘোষ, শাহেব আলী, প্রবাসী মুজিব কিবরিয়া, আল আমিন, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আবু শামীম, শহিদুল ইসলাম, স্বেচছাসেবকলীগ নেতা আব্দুল বাছিত মামুন, সাদমান মাহমুদ সানি, অঞ্জন দাস, রাইম আলী, সাদেক মিয়া, ছাত্রলীগ নেতা মাহফুজ বাবলু, হুমাউন কবির রুবেল, আতিকুর রহমান শাওন, মাহমুদ করিম নেওয়াজ, জামায়েল আহমদ ফরহাদ, কামরুল ইসলাম চৌধুরী সজিব, রিয়াদ আহমদ চৌধুরী, রুবেল তালুকদার জনি, গিয়াস উদ্দিন, রাজীব তরফদার, ইসতিয়াক রহমান তানভির, সুমন চৌধুরী, লাভলু রহমান, আরিফুল ইসলাম, আলী রাজ চৌধুরী প্রমুখ।

Leave a comment