২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: abdus salam

আমার সম্পর্কে : This author may not interusted to share anything with others
প্রচ্ছদ বিভাগ বাংলাদেশ

সিলেটে অর্থমন্ত্রীর সাথে মাঠ কর্মচারিদের স্বাক্ষাত: স্বারকলিপি পেশ

আব্দুস সালাম,

গণপ্রজাতন্তী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের সাথে বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা মাঠ কর্মচারিরা স্বাক্ষাত করেছেন।

শুক্রবার সকাল ১১টায় অর্থমন্ত্রীর সিলেটের বাস ভবনের স্বাক্ষাত ও স্বারকলিপি প্রদান করেন। তারা অর্থমন্ত্রীর নিকঠ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কথা বলেন। নেতৃবৃন্দ তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারিদের পেনশনের ২০% টাকা কর্তনের বিষয়ে মন্ত্রীকে অবহিত করেন। তিনি নেতৃবৃন্দে বক্তব্য ধর্য্য সহকারে শুনেন এবং কি কারনে পেনশনের টাকা কর্তন করা হয় এমন প্রশ্ননের উত্তরে সংশ্লিষ্টরা জানান অর্থ মন্ত্রনালয়ের ২টি পত্রের কারনে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য সম্ভলিত একটি স্বারকলিপিও প্রদান করা হয়। স্বাক্ষাত কালে মন্ত্রীকে পুরো বিষয়ে অবহিত করেন বাংলাদেশ গভর্ণমেন্ট এমপ্লয়ীজ ওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশনের মহা সচিব মো: নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা মাঠ কর্মচারি সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক মো: ফিরোজ মিয়া।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গভর্ণমেন্ট এমপ্লয়ীজ ওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, ফারুক হোসেন মৃধা, কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্ব মতিউর রহমান, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আব্দুস সাত্তার, আইন বিষয়ক সম্পাদক শামিম আহসান, বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা মাঠ কর্মচারি সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শহিদুল ইসলাম, ডিপলা মেডিকেল এসোসিয়েশন গোপালগঞ্জ শাখার সভাপতি আমিরুল জাফর, বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা মাঠ কর্মচারি সমিতি, সিলেট বিভাগের সহ সভাপতি আব্দুল মুকিত, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, জেলা কমিটির সভাপতি রাশেদা খানম রিনা, সহ সভাপতি কয়েছ রশিদ দিলওয়ার, হোসেন আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক নুর আহমদ, দফতর সম্পাদক এমরান আহমদ প্রমুখ।

পুরো বিষয়টির সমন্বয় সাধন করেন, অর্থমন্ত্রীর ছোট ভাই ড. একে আব্দুল মোমিন।

উল্লেখ্য যে গত ১২ অক্টোবর সিলেট জেলা পরিষদ হলে বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা মাঠ কর্মচারি সমিতি, সিলেট জেলা শাখার উদ্গে ‘জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রনে সাফল্য, কর্মচারিদেও মূল্যায়ন শীর্ষক সেমিনাওে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন ড. একে আব্দুল মোমেন। তিনি কর্মচারিদেও বিভিন্ন দাবির প্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রীর সাথে আলোচনার সুযোগ সৃষ্টি করেন।

Leave a comment