১৯শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: বিপ্র দাস বিশু বিত্রম

আমার সম্পর্কে : নির্বাহী সম্পাদক
প্রচ্ছদ বিভাগ বাংলাদেশ

বঙ্গবন্ধুর খুনীদের ফেরাতে কানাডায় আলোচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক: কুইবেকে অনুষ্ঠিতব্য জি-সেভেন আউটরিচ সম্মেলনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার কানাডা যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফরকালে ১০ জুন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈঠকে পালিয়ে থাকা বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে কানাডা থেকে দেশে ফেরত আনার বিষয়েও আলোচনা হবে। মঙ্গলবার দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

 

আগামী ৮ থেকে ১১ জুন চারদিন কানাডায় অবস্থান করবেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় তিনি কুইবেক শহরে অনুষ্ঠিতব্য জি-৭ সম্মেলনে অংশ নেবেন। এ ছাড়া তিনি জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে বৈঠক করবেন। সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে থাকবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

 

নির্বাচনের আগেই তিস্তার জট খুলতে বাংলাদেশ ও ভারত একটি অন্তর্বর্তীকালীন  পানিবণ্টন চুক্তির বিষয়ে প্রাথমিক মতৈক্যে পৌঁছেছে বলে যে খবর একটি সংবাদপত্রে এসেছে, সে বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, আমি কোনো মন্তব্য করব না।

 

সোমবার প্রকাশিত দৈনিক কালের কণ্ঠের এক প্রতিবেদনে সরকার ও আওয়ামী লীগের উচ্চপর্যায়ের সূত্রের বরাতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে তিস্তার আলোচনায় ‘অগ্রগতি’ হয়েছে এবং পরীক্ষামূলকভাবে তিন বছরের জন্য একটি অন্তর্বর্তীকালীন চুক্তির সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে।

 

সাত বছর আগে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের ঢাকা সফরের সময় বহু প্রতীক্ষিত তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি হওয়ার কথা থাকলেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধিতায় তা আটকে যায়।

 

বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে শুষ্ক মৌসুমে সেচের জন্য তিস্তার পানি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে দ্বিপক্ষীয় সব ফোরামেই ঢাকার পক্ষ থেকে নয়া দিল্লিকে ওই চুক্তির বিষয়ে তাগিদ দেওয়া হয়।  ২০১৪ সালে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের ক্ষমতায় আসার পর বিজেপির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তিস্তা চুক্তির আশা দিলেও মমতাকে তিনি রাজি করাতে পারেননি।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাম্প্রতিক ভারত সফরেও তিস্তা চুক্তির প্রসঙ্গ বিভিন্ন আলোচনায় আসে। তবে মে মাসের শেষে নয়া দিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বলেন, মমতাকে রাজি না করিয়ে তিস্তার জট ছাড়ানো সম্ভব না।

Leave a comment