২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: Md Mahfuz ahmed

আমার সম্পর্কে : প্রতিনিধি
প্রচ্ছদ বিভাগ সিলেট

লন্ডন থেকে আসা যাত্রী প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে

সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফের অবতরণ করল লন্ডন থেকে আসা বাংলাদেশ বিমানের আরও একটি ফ্লাইট। ৯৯ জন যাত্রী নিয়ে আসা ফ্লাইটের ৬৭ জন সিলেটের। বাকি ৩২ জন ঢাকার যাত্রী।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) বেলা পৌনে ১২টার দিকে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-২০২ ফ্লাইটটি সিলেট বিমানবন্দরে অবতরণ করে। ওসমানী বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক হাফিজ আহমদ বিমান অবতরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ৯৯ জন যাত্রী নিয়ে আসা বিমানের ফ্লাইটের ৬৭ জন সিলেটের যাত্রীকে নামিয়ে দেবার পর ফ্লাইটটি আরও ৩২ যাত্রী নিয়ে বেলা পৌনে ১ টার দিকে দিকে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে ওসমানী বিমান বন্দর ত্যাগ করে।

এদিকে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সিলেটের ৬৭ জন যাত্রী নামার পরপরই কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের তত্বাবধানে শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন পালনের জন্য সরকারের নির্ধারিত বাসে করে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে আজ সোমবার থেকে সিলেটের আসা লন্ডন ফেরতদের ১৪ দিন বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের পরিবর্তে ৪দিন নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। গত ১৩ জানুয়ারি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব ও রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগ থেকে এমন নির্দেশনা দিয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

এতে বলা হয়, যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের সরকার নির্ধারিত হোটেলে নিজ খরচে ৪দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। কোনও যাত্রী হোটেলে যেতে না চাইলে সরকারি ব্যবস্থাপনার কোয়ারেন্টিন সেন্টারে থাকতে হবে। ৪দিন পর যাত্রীদের পিসিআর পদ্ধতিতে করোনা পরীক্ষা করা হবে। পরীক্ষায় নেগেটিভ ফল আসলে বাড়িতে গিয়ে ১৪দিন হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হবে। পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ হলে সেই যাত্রীকে কোয়ারেন্টিন থেকে সরকার নির্ধারিত হাসপাতালে আইসোলেশনে পাঠানো হবে। হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যয় যাত্রীকে বহন করতে হবে। যা আগামী ১৫ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে।

পজ্ঞাপন জারির পর আজই প্রথম লন্ডন থেকে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানের সরাসরি ফ্লাইট অবতরন করলো। এর আগে সিলেটের লন্ডন ফেরতরা ১৪ দিন করে কোয়ারেন্টিন পালন করেন।ওসমানী বিমানবন্দর সূত্রে জানা যায়, সপ্তাহের প্রতি সোমবার ও বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দর থেকে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমানের সরাসরি ফ্লাইট আসে।

যুক্তরাজ্যে নতুন করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে সর্বশেষ গত ২৪ ডিসেম্বর ২০২ জন, গত ২৮ ডিসেম্বর ২০২ জন, ৩১ ডিসেম্বর ২৩৭ যাত্রী দেশে ফেরে। এরপর গত ৪ জানুয়ারি ৩৮ জন, ৭ জানুয়ারি ৩৪ জন, ১১ জানুয়ারি ৬০ জন ও ১৪ জানুয়ারি ৪২ যাত্রী নিয়ে বিমানের সাতটি ফ্লাইট ওসমানী বিমানবন্দরে আসে। এই৭ দিন আসা সিলেটের যাত্রীদের মধ্যে যথাক্রমে ১৬৫, ১৪৪, ২০২, ৪২, ২৮, ৪৩ ও ৪২ জন ছিলেন সিলেটের যাত্রী।

Leave a comment