৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: বিপ্র দাস বিশু বিত্রম

আমার সম্পর্কে : নির্বাহী সম্পাদক
প্রচ্ছদ বিভাগ বাংলাদেশ

বেপরোয়া মারসা বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেলো কলেজছাত্র সায়মনের

এ কে এম ইকবাল ফারুক,চকরিয়া :কক্সবাজারের চকরিয়ায় মার্চা পরিবহনের বেপরোয়া গতির একটি যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় মো. তানভীরুল ইসলাম সায়মন (২০) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী কলেজ ছাত্র নিহত হয়েছেন। এ সময় বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী শহিদুল ইসলাম বাপ্পি (১৯) নামে অপর এক যুবক গুরুতর আহত হয়। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় প্রথমে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত সায়মন চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ছড়ার পূর্বকূল এলাকার মো. তাজুল ইসলামের একমাত্র ছেলে। এ বছর তিনি চট্টগ্রাম ওমরগণি এমইএস (বিশ^বিদ্যালয়) কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। এছাড়া গুরুতর আহত শহিদুল ইসলাম বাপ্পি একই ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বানিয়ারছড়া মাহামুদ নগর এলাকার মৃত জসিম উদ্দিনের ছেলে। মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বরইতলী রাস্তার মাথা সংলগ্ন এলাকায় এ দূর্ঘটনা ঘটে।

স্থাণীয় প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন জানায়, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরইতলী একতা বাজার (গরুর বাজার) থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে বন্ধু শহীদুল ইসলাম বাপ্পির সাথে মহাসড়ক দিয়ে চকরিয়া পৌর সদরে আসছিলেন সায়মন। এ সময় তারা চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বরইতলী রাস্তার মাথা পার হয়ে কিছুদুর যাওয়ার পরপরই কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম অভিমুখি মার্চা পরিবহনের একটি বেপরোয়া গতির যাত্রীবাহি বাস ( চট্টমেট্রো ব ১১-১৩১৬) তাদেরকে মুখোমুখি চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই মারা যান কলেজ ছাত্র মো. তানভীরুল ইসলাম সায়মন। এ সময় মোটরসাইকেলটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয় সায়মনের বন্ধু মোটরসাইকেল চালক শহিদুল ইসলাম বাপ্পি। ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক বাপ্পিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে রেফার করেন। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানায় বাপ্পির স্বজনরা।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে চিরিংগা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আনিসুর রহমান বলেন, সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত কলেজ ছাত্র সায়মনের লাশ উদ্ধার করে ফাঁড়িতে আনা হয়। পরে নিহতের পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে তার লাশ মঙ্গলবার বিকালে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত গাড়ি দুইটি জব্দ করে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনী প্রক্রিয়াও চলমান রয়েছে বলে জানান তিনি।

Leave a comment