৭ই জুলাই, ২০২০ ইং , ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: Shuddho Barta

আমার সম্পর্কে : This author may not interusted to share anything with others
প্রচ্ছদ বিভাগ এক্সক্লুসিভ

মাশরাফির আহবানে সাড়া দিয়ে চিকিৎসাসেবায় এগিয়ে আসা সেই গরীবের ডাক্তার দীপ বিশ্বাস করোনা আক্রান্ত

ছবির এই চিকিৎসক দম্পতির নাম দীপ বিশ্বাস এবং স্মৃতিকণা সরকার। ২৮ বছরের যুবক ডাঃ দীপ সিলেটের জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ থেকে পাস করে এখন কর্মরত নড়াইল ডায়াবেটিক সমিতিতে। আর উনার স্ত্রী স্মৃতিকণা সরকার গাজীপুরের সিটি মেডিকেল কলেজ থেকে সদ্য পাস করা চিকিৎসক, বয়স মাত্র ২৫ বছর। নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনে বিনা মূল্যে চিকিৎসাসেবা দিতেন ডাঃ দীপ। ফাউন্ডেশনটি প্রতিষ্ঠা করেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। মাশরাফি এই ফাউন্ডেশনের সভাপতি। বাংলাদেশে করোনার প্রকোপ শুরু হলে একদিন মাশরাফি ফোন দিয়েছিলেন ডাঃ দীপকে। ফোনে মাশরাফি বললেন, “ঘরবন্দী মানুষের চিকিৎসা দরকার, কী করা যায়?” উত্তরে ডাক্তার দীপ বিশ্বাস জানান, “আমি আছি, বাড়ি বাড়ি গিয়ে চিকিৎসা দিতে প্রস্তুত।” পাশাপাশি আরও চিকিৎসক খুঁজছিলেন মাশরাফি। পাশেই বসা ছিলেন ডাঃ দীপ বিশ্বাসের স্ত্রী স্মৃতিকণা সরকার। স্মৃতিকণাও সাড়া দিলেন। স্মৃতিকণার সঙ্গেও কথা বললেন মাশরাফি। তাঁর উৎসাহে স্বামী স্ত্রী দুজন মিলে বিনা মূল্যে চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছিলেন নড়াইল জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে। দেশের বহুল প্রচারিত “প্রথম আলো” পত্রিকার এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, মাত্র ৬ দিনে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ৪৪২ জন মানুষকে বিনা মূল্যে চিকিৎসাসেবা দিয়েছেন দীপ বিশ্বাস ও স্মৃতিকণা সরকার। আর এখনো পর্যন্ত এই দম্পতির চিকিৎসা সেবা পেয়েছেন নড়াইলের হাজারো মানুষ। ভ্রাম্যমাণ এই চিকিৎসাসেবা দিতে চিকিৎসক দম্পতি বিভিন্ন এলাকায় গিয়েছেন নড়াইলে মাশরাফির দেওয়া ব্যক্তিগত অ্যাম্বুলেন্সে করে। অসহায় মানুষের চিকিৎসা সেবায় নিরন্তর ছুটে চলা ডাঃ দীপ বিশ্বাস সম্প্রতি নিজেই প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। গরীবের ডাক্তার খ্যাত দীপ বিশ্বাসের দ্রুত আরোগ্য এবং সেইসাথে এই চিকিৎসক দম্পতির সুখী সমৃদ্ধময় দাম্পত্য জীবন কামনা করছি।

Leave a comment