১৮ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্তাটি লিখেছেন: shuddhobarta24@

আমার সম্পর্কে : This author may not interusted to share anything with others
প্রচ্ছদ বিভাগ সিলেট

টাঙ্গুয়ার হাওরে বাঁধ কাটায় উদ্বিগ্ন গ্রামের ৮৮ বোরোচাষিরা

ডেস্ক নিউজ : মাছ ধরার জন্য শিকারিরা টাঙ্গুয়ার হাওরের নাওটানা ফসলরক্ষা বাঁধ কেটে দেওয়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন তাহিরপুর ও ধর্মপাশা উপজেলার চার ইউনিয়নের অন্তত ৮৮টি গ্রামের বোরোচাষিরা।

এদিকে ফসলরক্ষা বাঁধ কাটার ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তাহিরপুর থানায় মামলা দায়ের করেন টাঙ্গুয়া হাওরের সহব্যবস্থাপনা কমিটির কোষাধ্যক্ষ খসরুল আলম। মামলায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে ৯০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ মামলায় পুলিশ আনোয়ার হোসেন নামের এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে। তাকে গতকাল শুক্রবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে তাহিরপুর থানাপুলিশ। অপর আসামিরা হলেন উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের হুকুমপুর গ্রামের নুরুল আমিনের ছেলে আরিফ মাঝি (২২), তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (২৮), দিল হুসেনের ছেলে মিজানুর রহমান (২৭), আলী হোসেনের ছেলে বকুল মিসয়া (৩০), সুলতান মিয়া (২৬), দুমাল গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়া (৩০) ও তার ভাই রফিকুল ইসলাম (৩২) ও লামাগাঁও গ্রামের নিজামউদ্দিনের ছেলে পাবেল মিয়া (৩২)।

প্রসঙ্গ, বৃহস্পতিবার ভোর রাতে মাছ শিকারিরা হাওরের নাওটানায় বোরো ফসলরক্ষা বাঁধটি কেটে দেয়। ফলে সীমান্তের টেকেরঘাট থেকে নেমে আসা পাটলাই নদীপারের গোলাভারি গ্রামের কাছ দিয়ে প্রবল বেগে পানি ঢুকছে হাওরে। পানিতে প্লাবিত হচ্ছে ধর্মপাশা উপজেলার উত্তর ও দক্ষিণ এবং তাহিরপুর উপজেলার উত্তর ও দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের ৮৮ গ্রামের কৃষকের জমি।

বাঁধ নির্মাণকারী সংগঠন টাঙ্গুয়ার হাওর সমাজভিত্তিক টেকসই ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আব্দুছ ছাত্তার জানালেন, পাটলাই নদীর জেলেরাই বেশি মাছ ধরার লোভে এই বাঁধ কাটতে পারে।

টাঙ্গুয়া হাওরের সহব্যবস্থাপনা কমিটির কোষাধ্যক্ষ খসরুল আলম বলেন, বাঁধটি কে বা কারা রাতের আঁধারে কেটে দিয়েছে তা এলাকার কেউ বলতে পারছেন না। তবে অসৎ জেলেরাই মাছ মারার উদ্দেশ্যে বাঁধটি কেটেছে।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল বলেন, হাওরে পানি প্রবেশ ঠেকানো না গেলে ৬ থেকে ৭ হাজার হেক্টর জমির বোরো ধান ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এই বাঁধ কেটে দেওয়ার ঘটনায় দুই উপজেলার অন্তত ৮৮টি গ্রামের কৃষকদের বোরো জমি চরম হুমকিতে পড়েছে।

ধর্মপাশায় ভারী বর্ষণ সংক্রান্ত সতর্কতামূলক মাইকিং ধর্মপাশা প্রতিনিধি জানান, সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় ভারী বর্ষণের সতর্কবার্তা বিষয়ে মাইকিং করা হয়েছে। শুক্রবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলার চন্দ্রসোনার থাল হাওর ও বিভিন্ন এলাকায় সতর্কতামূলক এই মাইকিং করা হয়।

Leave a comment